শনিবার, ২৬ জানুয়ারী, ২০১৩

তুমি এসো

তুমি এসো
সোনালী রোদের রুপালী ঝিলিক দিয়ে
কাক ডাকা ভোরে গুটি গুটি পায়ে।

তুমি এসো
শরতের রোদেলা দুপুরে
কাঁশ ফুলের  শুভ্রতা নিয়ে।

তুমি এসো
বসন্তের কোকিল ডাকা মধ্যাহ্নে
আম্রমুকুলের মৌ মৌ গন্ধের আবেশ ছরিয়ে।

তুমি এসো
শ্রাবনের বর্ষনমূখর সন্ধ্যায়
এলোচুলে একবুক বিষন্নতা নিয়ে।

তুমি এসো
শৃংখল মুক্তির মিছিলে
শানিত শ্লোগানে হাতে হাত রেখে
মুক্তির বার্তা নিয়ে।

তুমি এসো
তোমার হৃদয় দেবতার তুষ্টির জন্য
ফুলের ডালী সাজিয়ে।

0477
Viens
Viens au matin, à pas lents, quand le corbeau croasse sous les premiers rayons du soleil doré
Viens à midi à la fin de l'automne, pure comme l'herbe de la pampa
Viens au printemps, avec le parfum des fleurs de manguier, quand le rossignol chante mélodieusement à midi
Viens le soir pendant la saison des pluies, avec tes cheveux détachés et ton visage pâle
Viens à la manifestation, marchons main dans la main au milieu des slogans pour la liberté
Viens avec une corbeille de fleurs en guise d'offrande nourrir mon coeur et mon désir



TRADUCTION MOT-A-MOT le 18 septembre 2016 avec l'auteur du texte, Hasnat Jehan et Andréa

Verbatim de l'auteur: Le poète attend sa bien-aimée, il rêve d'elle, il l'imagine venir.


Le blog de l'auteur: http://mgmorshed80.blogspot.fr


 Come
Come
with little bashful steps
When the silver flash of the golden Sun shines the dawn
Come
With the purity of those white flowers
when the sun drenches the noon of the late autumn
Come
Spreading the zest of sweet-smelling mango buds
When the cuckoo coo’s in the spring midday
Come
With your unruly hair and heart-full melancholy
In the sprinkling evening of the rainy day
Come
With whetted slogan of liberty and hand in hand
In the rally of freedom
Come
To gratify the God of your heart
with promising garden full of flowers….


Translate: Ayesha Siddiquea



শনিবার, ১৯ জানুয়ারী, ২০১৩

প্রকৃতির এক অকৃত্রিম অলংকারে সেজেছে প্যারিস

প্যারিসের সমস্ত শরীর এখন তুষারে ঢাকা। প্রকৃতির এক অকৃত্রিম অলংকারে সাজিয়েছে তার সমস্ত দেহ। প্যারিসের রুপের দিকে তাকালে প্রেমে পড়বেনা এমন মানুষ খুজে পাওয়াই দায়। শত শত বছর ধরে হাজার হাজার শিল্পী প্যারিসের রুপের উৎকর্ষ সাধনের যে অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন তা আজ পন্ডশ্রমে পর্যভূষিত।প্যারিসের আজকের রুপের কাছে শিল্পকলার সমস্ত সৃষ্টিই পরাজিত। প্যারিসের রাস্তায় হাঁটতে বের হলে স্বর্গীয় অনুভূতিতে যে কারো দেহ মন আচ্ছাদিত হতে পারে। যে হৃদয় পাথরসম অনুভূতিহীন প্যারিসের আজকের প্রকৃতি সেই হৃদয়ে প্রাণের সঞ্চার করতে দুহাত বাড়িয়ে ডাকছে ।প্রকৃতির এই সৌন্দর্য ধরে রাখার জন্য ক্যামেরা হাতে বেড়িয়ে পড়েছে অসংখ্য সৌন্দর্য় পিপাসু্ মানুষ নিজেকে স্মৃতি করে রাখার জন্য। বৃষ্টির দিনে বাংলার দুরন্ত কিশোর কিশোরী যেমন বৃষ্টিতে ভিজে তার দুরন্ততা ,দুষ্টমীতে প্রকৃতির হেয়ালীপনাকে সার্থক করে তোলে, তেমনি প্যারিসের বুকে বেড়ে ওঠা দুরন্ত কিশোর কিশোরীর দলও প্রকৃতির এই উৎসবের দিনে উজার করে উচ্ছাস ঢেলে দিচ্ছে। বাংলার বর্ষা ,বসন্ত,শরৎ যেমন প্রেমিক প্রেমিকার মনে দোলা দেয়,অনুভূতিতে ভিন্নতা আনে,হৃদয়ের রংয়ের বৈচিত্রতা আনে ,কিন্ত পশ্চিমা প্রেমিক প্রেমিকার হৃদয়ে আমাদের মত এত বৈচিত্রতা না থাকলেও আজকের প্যারিসের প্রকৃতি অবশ্যই ওদেরকে রোমাঞ্চিত করছে। তুষারের সাদা শুভ্রতার মতই সুন্দর হয়ে উঠুক পৃথিবীর সমস্ত মানুষের অন্তর, তুষারের গলিত পানিতে ধুয়ে মুছে যাক পৃথিবীর অসত্য,বাসি পঁচা মতবাদ ,সত্যের আলোয় জেগে উঠুক নতুন এক পৃথিবী ।…………………….